সৌম্য-লিটনের টেস্ট পারফরম্যান্স প্রশ্নবিদ্ধ: পাপন

সৌম্য-লিটনের টেস্ট পারফরম্যান্স প্রশ্নবিদ্ধ: পাপন

ক্রিকেটের আভিজাত্যের ফরম্যাট টেস্টে প্রত্যাশিত পারফরম্যান্সে ব্যর্থ বাংলাদেশ। টেস্টে আফগানিস্তানের মতো তরুণ দলের বিপক্ষে খেলতে নেমে কোনঠাসা হয়ে পড়েছে বাংলাদেশ দল।

মাত্র তৃতীয় টেস্ট খেলতে নামা আফগানদের বিপক্ষে পরাজয়ের লজ্জার মুখে পড়েছে ১১৫তম টেস্ট খেলায় অভিজ্ঞতাসম্পন্ন দল বাংলাদেশ।

আফগানদের বিপক্ষে সাকিব আল হাসানের নেতৃত্বাধীন দলের বাজে পারফরম্যান্সে হতাশ ক্রিকেট সমর্থক, বিশ্লেষক এমনকি ক্রিকেট বোর্ডের সভাপতি নাজমুল হাসান পাপনও।

রোববার ধানমন্ডিতে সংবাদ মাধ্যমের সঙ্গে আলাপে বিসিবি সভাপতি বলেন, আফগানিস্তানের বিপক্ষে আমাদের পরিকল্পনায় অভাব ছিল। কী কারণে এমন হলো তা খতিয়ে দেখা প্রয়োজন। তবে আমি আশা করেছিলাম স্পোর্টিং উইকেটে খেলা হবে।

বিসিবি সভাপতি আরও বলেন, আফগানিস্তানের স্পিন আক্রমণ বিশ্বের অন্যতম সেরা তা সবারই জানা। কিন্তু আমার প্রশ্ন হলো, একাদশে কোনো পেসার নেয়া হলো না কেন? এগুলো সব পরিকল্পনার বাইরে।

আফগানদের ৩৪২ রানের জবাবে প্রথম ইনিংসে ব্যাটিংয়ে নেমে ২০৫ রানে অলআউট হয় টাইগাররা। ১৩৭ রানে এগিয়ে থেকে দ্বিতীয় ইনিংসে ২৬০ রান করে অলআউট হয় রশিদ খানের নেতৃত্বাধীন আফগানিস্তান।

৩৯৮ রানের বিশাল টার্গেট তাড়া করতে নেমে রোববার চতুর্থ দিনে ১৩৬ রান সংগ্রহ করতেই ৬ উইকেট হারায় বাংলাদেশ। পরাজয় এড়াতে হলে সোমবার পঞ্চম দিনে উইকেটে পরে থাকার চ্যালেঞ্জ নিতে হবে সাকিব-সৌম্য-মিরাজ-তাইজুল-নাইমদের। সাকিব-সৌম্য-মিরাজরা কতটা চ্যালেঞ্জ নিতে পারবেন তা সময়ই বলে দেব। বাস্তবতা হল পরাজয়ের ঠিক দুয়ারে বাংলাদেশ দল।

টেস্টে লিটন দাস ও সৌম্য সরকারের পারফরম্যান্স নিয়ে হতাশা প্রকাশ করে বিসিবি সভাপতি বলেন, লিটন দাস, সৌম্য সরকার টেস্টের খেলোয়াড় নন। অনেক কিছুই পরিকল্পনার বাইরে হয়। এখন সময় এসেছে পরিবর্তনের। আগামী ত্রিদেশীয় টি-টোয়েন্টি সিরিজেই সেই পরিবর্তন আনা হবে।

প্রথম ইনিংসে ১৭ রান করা সৌম্য সরকার দ্বিতীয় ইনিংসে শূন্য রানে অপরাজিত আছেন। অন্যদিকে প্রথম ইনিংসে ৩৩ রান করা লিট দাস দ্বিতীয় ইনিংসে ফেরেন মাত্র ৯ রানে। আফগানদের বিপক্ষে দুই ইনিংসে তার সংগ্রহ মাত্র ৪২ রান।