দুই পরিবর্তন নিয়ে ১ম টি টোয়েন্টিতে মাঠে নামছে বাংলাদেশ কপাল পুরছে যাদের

দুই পরিবর্তন নিয়ে ১ম টি টোয়েন্টিতে মাঠে নামছে বাংলাদেশ কপাল পুরছে যাদের

ব্যাট হাতে সময়টা ভালো যাচ্ছে না তামিম ইকবালের। কিছুদিন আগে সতীর্থ সাকিব আল হাসান ফর্মহীন ক্রিকেটারদের বিশ্রাম নিয়ে সতেজ হয়ে ফেরার পরামর্শ দিয়েছিলেন। এবার সেই পথেই হেঁটে ছুটির আবেদন করলেন তামিম। আসন্ন আফগানিস্তান সিরিজে হয়ত দেখা যাবে না এই উদ্বোধনী ব্যাটসম্যানকে।

ব্যাট হাতে খারাপ সময় গেলে স্বাভাবিকভাবেই মন ভেঙে পড়ে ব্যাটসম্যানদের। তাছাড়া নিজে যদি হন দলের একজন জ্যৈষ্ঠ সদস্য, তাহলে তো চাপটা আরও বেশি পড়েই! গত তিন মাস টানা খেলার মধ্যে ছিল বাংলাদেশ দল। প্রতিটি ম্যাচেই দলের হয়ে মাঠে নেমেছেন তামিম ইকবাল। তবে প্রতিবারই আশাহত করেছে তার ব্যাট। ফিল্ডিং করার ক্ষেত্রেও দেখা গেছে দৃষ্টিকটু কিছু ভুল।

এবার তাই বিরতি দিয়ে ফেরার সিদ্ধান্ত নিয়েছেন এই বাঁহাতি ব্যাটসম্যান। বাংলাদেশ ক্রিকেট বোর্ডের (বিসিবি) কাছে করা ছুটি আবেদনে, তামিম ‘মানসিক বিরতি’ শব্দ উল্লেখ করেছেন।

তাকে ছুটি দেয়ার ব্যাপারে বিসিবিও ইতিবাচকতা দেখিয়েছে। ফলে এটা প্রায় নিশ্চিত, আফগানিস্তানের বিপক্ষে একটি টেস্ট ও ত্রিদেশীয় টি-২০ সিরিজে তাকে পাওয়া যাচ্ছে না।

আগামী নভেম্বরে ভারত সফরে টেস্ট চ্যাম্পিয়নশিপের অংশ হিসেবে দুইটি টেস্ট ও তিনটি টি-২০ ম্যাচ খেলবে বাংলাদেশ। উক্ত সিরিজে তামিম দলে ফিরবেন বলে আশা করা হচ্ছে। ছুটির এই সময়টাতে দেশের হয়ে সর্বোচ্চ রানের মালিক তামিম ফিটনেস নিয়ে কাজ করবেন বলে জানা গেছে।

নিউজিল্যান্ডের বিপক্ষে তিন ম্যাচের ওডিআই সিরিজ দিয়ে চলতি বছরে বাংলাদেশের আন্তর্জাতিক ক্রিকেট মিশন শুরু হয়। সেই সিরিজে তিন ম্যাচে তামিমের সংগ্রহ ছিল মাত্র ১০ রান। বিশ্বকাপ শুরুর আগে আয়ারল্যান্ডে ত্রিদেশীয় সিরিজে দুইটি অর্ধশতক ইনিংস খেলে ফর্মে ফেরার ইঙ্গিত দিয়েছিলেন। কিন্তু তারপরেই যেন আবার থমকে গেছেন।

বিশ্বমঞ্চে ৮ ম্যাচে মাত্র ২৯.৩৮ গড়ে করেছেন ২৩৫ রান। তারপর উপমহাদেশের মাটিতে শ্রীলঙ্কার বিপক্ষে ৩ ম্যাচে তার সংগ্রহ মাত্র ২১ রান। সবমিলিয়ে এই বছর ম্যাচে ২৪.৫৬ গড়ে তার সংগ্রহ ৪৪২ রান। এই সময়ে স্ট্রাইকরেটটাও ভালো ছিল না। ওপেনার বড় ইনিংস খেলতে না পারায় পুরো সিরিজই ভুগেছে বাংলাদেশ।

এদিকে আফগান ও জিম্বাবুয়ের বিপক্ষে ত্রিদেশীয় সিরিজে ওপেনিং এ তামিমের পরিবর্তে দেখা যেতে পারে এনামুল বিজয় অথবা ইমরুল কায়েসকে। হজ্জ থেকে ফিরেই দলের সাথে যোগ দিবেন সাকিব আল হাসান তাই তিন নম্বর পজিশনে আসবে পরিবর্তন।এদিকে নেই টি ২০ স্পেশালিস্ট বিজয় ও তাসকিন আহমদ।

ডোমিঙ্গো বলেন, ‘আমি দক্ষিণ আফ্রিকা জাতীয় দলের কোচ ছিলাম। নিউজিল্যান্ডের কাছে ২০১৫ বিশ্বকাপের সেমিফাইনালে হেরে যায় প্রোটিয়ারা। এই হারের পর ঘুরে দাঁড়াতে আমাদের অনেক সময় লেগেছে। শ্রীলঙ্কায় বাংলাদেশ দলের ব্যর্থতা নিয়ে আমি খুব বেশি দুশ্চিন্তা করছি না, কারণ বিশ্বকাপে এমন ফলাফলের পর ভালো করাটা খুবই কঠিন।’

‘বিশ্বকাপে বাংলাদেশের কিছু বিষয় দেখে আমি রোমাঞ্চিত। তারা কিছু ম্যাচে জয়ের কাছাকাছি পৌঁছে গিয়েছিল। নিউজিল্যান্ডের বিপক্ষে একটি রান আউট পার্থক্য গড়ে দিয়েছে। হারের ব্যবধানগুলো খুবই ছোট। এখন শুধু মানসিক বাধাটা কাটিয়ে উঠতে চাই। বিশ্বকাপ পেছনে পড়ে গেছে, এ থেকে নেওয়া শিক্ষা এখন কাজে লাগাতে হবে।’

বাংলাদেশ একাদশঃ ইমরুল কায়েস , মোহাম্মদ মিঠুন, সৌম্য সরকার, সাকিব আল হাসান, মাহমুদউল্লাহ রিয়াদ, লিটন কুমার দাস (উইকেটরক্ষক), মেহেদী হাসান মিরাজ, মোহাম্মদ সাইফুদ্দিন , আবু জায়েদ রাহী , মুশফিকুর রহিম, মুস্তাফিজুর রহমান।