স্ত্রীকে বাসর ঘরে রেখে যুবকের কাণ্ড

স্ত্রীকে বাসর ঘরে রেখে যুবকের কাণ্ড

নববধূকে বাসর ঘরে রেখেই অজিত বর্মণ নামে এক যুবক গলায় ফাঁস নিয়ে আত্মহত্যা করেছে। গত শুক্রবার দিবাগত রাত ১টার দিকে উপজেলার শ্রীপুর উত্তর ইউনিয়নের মুজরাই গ্রামে এ ঘটনা ঘটে। অজিত সুনামগঞ্জের তাহিরপুর উপজেলার শ্রীপুর উওর ইউনিয়নের হাওর সংলগ্ন মুজরাই গ্রামের মীর বদনের ছেলে।

নিহতের পারিবার জানায়, উপজেলার মুজরাই গ্রামের অজিত বর্মণের সঙ্গে পার্শ্ববর্তী বিশ্বম্ভরপুর উপজেলার বারকুঁড়ি গ্রামের সুধন বর্মাণের মেয়ে সঞ্চিতা বর্মণের (১৯) পারিবারিক সম্মতিক্রমে বুধবার বিয়ে হয়। নববধূকে মুজরাই গ্রামে নিজ বাড়িতে নিয়ে আসার পর শুক্রবার বাসর রাতে স্ত্রীকে রেখে প্রকৃতির ডাকে সাড়া দেয়ার কথা বলে অজিত ঘর থেকে বের হয়ে আর ফিরেনি। পরে বসত বাড়ির পশ্চিম পাশের গাছের সঙ্গে রশি দিয়ে গলায় ফাঁস দেয়া ঝুলন্ত লাশ দেখতে পায় পরিবার ও প্রতিবেশীরা।

স্থানীয় ইউপি সদস্য সাজিনুর মিয়া বলেন, অজিত বর্মণ মানসিক রোগী ছিল। গত দুই দিন আগে পরিবারের আলোচনার মাধ্যমে বিশ্বম্ভপুর উপজেলার বারকুড়ি গ্রামের মেয়ে সঞ্চিতা বর্মণের (১৯) সঙ্গে তার বিয়ে হয়। শুক্রবার তাদের বাসর রাত ছিল কিন্তু রাতে ঘর থেকে বেরিয়ে অজিত বর্মণ গলায় ফাঁস দিয়ে আত্মহত্যা করেছে।

ঘটনার সত্যতা নিশ্চিত করে তাহিরপুর থানা পুলিশের ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) আতিকুর রহমান বলেন, মরদেহটি উদ্ধার করে ময়নাতদন্তের জন্য সুনামগঞ্জ মর্গে পাঠানো হয়েছে। পুলিশ আত্মহত্যার কারণ অনুসন্ধান করছে।