উপস্থাপনার মাধ্যমে নতুন এক জয়ের জন্ম হয়েছে

উপস্থাপনার মাধ্যমে নতুন এক জয়ের জন্ম হয়েছে

টেলিভিশন অভিনেতা হিসেবে শোবিজে কাজ শুরু করেছিলেন শাহরিয়ার নাজিম জয়। টিভি পর্দায় পরিচিতি পাওয়ার পর কাজ শুরু করেন চলচ্চিত্রে। ‘জীবনের গল্প’ ছবির মাধ্যমে বড় পর্দায় অভিষিক্ত হন তিনি। এরপর ‘এই যে দুনিয়া’, ‘গ্রাম গঞ্জের পিরীত’, ‘পাষাণের প্রেম’ ছবিগুলোতে কাজ করে জনপ্রিয়তা পান জয়। ছোট ও বড় দুই পর্দাতেই অভিনয় সাফল্যের পর নাম লিখান নির্মাণে। তার প্রথম ছবি ‘প্রার্থনা’ নির্মাণ করেও হয়েছেন পুরস্কৃত। সব অঙ্গনে পরিচিতি অর্জন করে তিনি আসেন উপস্থাপনায়। টিভি পর্দা থেকে শুরু করে স্টেজ কিংবা করপোরেট শো সবখানেই এখন উপস্থাপক শাহরিয়ার নাজিম জয়। উপস্থাপনায় থিতু হয়ে অভিনয়কে জানিয়েছেন বিদায়। বুধবার (১০ এপ্রিল) সন্ধ্যায় এফডিসিতে শুটিংয়ের ফাঁকে বিডি২৪লাইভ ডটকমের বিনোদন প্রতিবেদক মো: ইমরুল নুরের সঙ্গে একান্ত কথা বলেছেন তিনি। পাঠকদের উদ্দেশ্যে জন্য তার কথোপকথনের চুম্বক অংশ তুলে ধরা হল-

বিডি২৪লাইভ: ‘সেন্স অব হিউমার’ সেলেব্রেটি টক-শো আপনাকে জনপ্রিয়তার শীর্ষে পৌঁছে দিয়েছে। এরপর থেকে নিজেকে উপস্থাপনায় ব্যস্ত রেখেছেন আপনি। বিষয়টা কেমন উপভোগ করছেন?
শাহরিয়ার নাজিম জয়: নাটক, চলচ্চিত্র সব অঙ্গনেই তো কাজ করেছি। তবে এখন উপস্থাপনা নিয়ে বেশ ভালোই আছি। আমি খুব স্বাচ্ছন্দ্যবোধ করছি। জনপ্রিয়তা কিনা জানি না তবে অনুষ্ঠানটির মাধ্যমে নতুন এক জয়ের জন্ম হয়েছে। এখন আমি উপস্থাপনাকেই বিকল্প পেশা হিসেবে বেছে নিয়েছি, এটা আগেও বলেছি আমি। এই পেশাটা থেকে আমি অনেক কিছু পেয়েছি। যদি আর্থিক দিক দিয়ে বলি তবে বলব এই পেশা থেকে আমি যা অর্জন বা আয় করেছি তা আমার সাড়া জীবনের নাটকের আয়ের চেয়েও বেশি।

বিডি২৪লাইভ: অনুষ্ঠানে আপনি যে আপনার অতিথিকে এক রকম বলা যায় আক্রমণ করে বিভিন্ন প্রশ্ন করেন, এটা কেন করেন কিংবা এটি কিরুপ প্রভাব ফেলে?শাহরিয়ার নাজিম জয়: এ রকম অনুষ্ঠান তো অনেক হয়। কিন্তু আমার শো-এর মত কয়টা এতো জনপ্রিয় হতে পেরেছে? আজকে আমি সেটা করতে পেরেছি বলেই এখানে আমার একটা আলাদা পরিচিতি হয়েছে। আর প্রভাবের কিছু নেই, আমি এগুলো নিয়ে এতো ভাবি না।

বিডি২৪লাইভ: এখন মাঝে মধ্যে আপনাকে মিউজিক ভিডিওতে মডেল হিসেবে অভিনয় করতে দেখা যাচ্ছে। এটা কি নিয়মিতই করবেন?
শাহরিয়ার নাজিম জয়: এখন তো কাজ করার অনেক ক্ষেত্র তৈরি হয়েছে। যেখানে ভালো মনে হচ্ছে সেখানে কাজ করছি। অভিনয় তো করা হয় না। এখন কিছু গানে মডেল হিসেবে কাজ করছি। সামনে হয়তো আরও দেখা যেতে পারে।

বিডি২৪লাইভ: সম্প্রতি যে কাজটা করলেন তা নিয়ে কিছু বলুন…
শাহরিয়ার নাজিম জয়: প্রতিক হাসানের একটা গান। প্যারোডি গান বলা যায়। গানের কথাগুলো হচ্ছে- এ রকম ‘মিরেরসরাইয়ের আনোয়ার ভাই, বিয়ে করবো পাত্রী চাই’। উপভোগ করার মত একটা গান। গানের কথা আমি নিজেই লিখেছি আর সুর ও সংগীত করেছেন এস এম তুষার। বৈশাখেই আমার ইউটিউব চ্যানেলে গানটি প্রকাশিত হবে। হাবিবুর রহমানের কোরিওগ্রাফি ও পরিচালনায় আমার সাথে মডেল হয়েছেন লিয়ানা লিয়া।

বিডি২৪লাইভ: আগামীতে অভিনয়ে কি আর ফিরবেন না?
শাহরিয়ার নাজিম জয়: ফেরার কিছু নেই। অনেকদিন ধরেই তো নাটক কিংবা চলচ্চিত্রে অভিনয় করছি না। এখন উপস্থাপনা নিয়েই ভালো আছি। আর মিউজিক ভিডিওতে তো এখন কাজ করছি ফাঁকে ফাঁকে। আমার ইউটিউব চ্যানেলের জন্য ‘জয়ের আদালত’ নামের একটি অনুষ্ঠান শুরু করবো। যেখানে মিডিয়ার নানা অসঙ্গতি তুলে ধরা হবে। এই অনুষ্ঠানে অতিথি হিসেবে থাকবেন শোবিজে বিবাদ-দ্বন্দ্বে জড়ানো মানুষেরা। আর তাদের সঙ্গে সংশ্লিষ্ট একজন থাকবেন বিচারক হিসেবে।

বিডি২৪লাইভ: কাজের পাশাপাশি এখন ইউটিউব চ্যানেলেও মনোযোগী হয়েছেন। নিজের চ্যানেল থেকে কাজ করবেন বলেও জানিয়েছিলেন। সেটা কতটা ফলপ্রসূ বলে মনে করেন?শাহরিয়ার নাজিম জয়: ট্রেন্ড বদলাচ্ছে দিন দিন। এখন যদি আগের জায়গায় পরে থাকি তাহলে তো হবে না। যুগের সাথে সাথে আমাদেরকেও বদলাতে হবে। সবকিছু এখন অনলাইন কেন্দ্রিক হয়ে গিয়েছে। যার মাধ্যমে সবকিছু এখন হাতের মুঠোয়। ইন্টারনেট তো এখন আশীর্বাদ। যেকোনো তথ্য মুহূর্তেই লাখ লাখ মানুষের কাছে পৌঁছে যাচ্ছে। ভালো কাজের জন্য এখন আর তথাকথিত প্রযোজক কিংবা প্লাটফর্মের জন্য বসে থাকা লাগে না। এখন টেলিভিশন নাটকের চেয়ে ইউটিউবের কাজ হচ্ছে বেশি এবং সেগুলো অত্যন্ত চমৎকার। সেখানে কাজগুলো দেখার পর মানুষ সরাসরি তাদের ফিডব্যাক জানাচ্ছে। এমন সুযোগ তো টেলিভিশনে নেই। আমার চ্যানেলের সাবস্ক্রাইবার বাড়ছে দিন দিন। ২ লাখেরও বেশি আছে। এটাতেই মনোযোগ দিচ্ছি। এখান থেকে গান, ভিডিও নির্মাণ করবো। আর আমার অনুষ্ঠান তো আছেই।

বিডি২৪লাইভ: আপনার ‘পাপ কাহিনী’ চলচ্চিত্রের কাজ কতটুকু এগিয়েছে?
শাহরিয়ার নাজিম জয়: ছবিটির ৫০ ভাগ কাজ শেষ হয়েছে। এরমধ্যে আমার ছবির প্রযোজক অসুস্থ হয়ে পড়েন, তারপর দেশের বাইরে যান। উনি সুস্থ না হওয়া পর্যন্ত কিছুই বলা যাচ্ছে না। তবে খুব শিগগিরই ছবির বাকি কাজ শেষ করার ইচ্ছা রয়েছে।

বিডি২৪লাইভ: এতো ব্যস্ততার মাঝেও বিডি২৪লাইভকে সময় দেয়ার জন্য আপনাকে ধন্যবাদ। আপনার জন্য শুভকামনা রইল।
শাহরিয়ার নাজিম জয়: বিডি২৪লাইভকেও ধন্যবাদ মানুষের কাছে সত্য ও বস্তু নিষ্ঠ খবর তুলে ধরার জন্য।