বিশ্ব ইজতেমায় ঢল নেমেছে ধর্মপ্রাণ মুসল্লিদের

বিশ্ব ইজতেমায় ঢল নেমেছে ধর্মপ্রাণ মুসল্লিদের

ধর্মপ্রাণ লাখো মুসল্লির উপস্থিতিতে গাজীপুরের টঙ্গীর তুরাগ তীরে বসছে মিলনমেলা। ৫৪তম বিশ্ব ইজতেমা। এ উপলক্ষে ময়দানে তাবুর নিচে জড়ো হয়েছেন দেশ-বিদেশের লাখ লাখ মুসল্লি। ইজতেমা ময়দানে এখন চলছে ইসলামের জ্ঞান-গরিমা, দাওয়াত-তাবলিগ, ভালোবাসা ও প্রীতির আদান-প্রদান।

আয়োজকদের সূত্রে জানা গেছে, আগামী ১৫ ফেব্রুয়ারি শুক্রবার শুরু হবে তাবলিগ জামায়াত আয়োজিত মুসলিম উম্মাহর দ্বিতীয় বৃহত্তম সমাবেশ বিশ্ব ইজতেমা। এবারের ইজতেমায় এক সঙ্গে অংশ নিচ্ছেন দেশের ৬৪ জেলার মুসল্লি। শনিবার আখেরি মোনাজাতে অংশ নেবেন তারা।

দুই গ্রুপের আলাদা আয়োজনে শুক্রবার (১৫ ফেব্রুয়ারি) শুরু হয়ে ১৮ ফেব্রেুয়ারি শেষ হবে এবারের বিশ্ব ইজতেমা। মোনাজাত অনুষ্ঠিত হবে শনিবার (১৬ ফেব্রুয়ারি) ও সোমবার (১৮ ফেব্রুয়ারি)। বিবাদ থাকলেও তাবলিগ অনুসারী, এলাকাবাসী ও প্রশাসনসহ সর্বস্তরের মানুষের দাবি এবারের বিশ্ব ইজতেমা যেন শান্তিপূর্ণভাবে অনুষ্ঠিত হয়।

বিশ্ব ইজতেমা ময়দান ঘুরে দেখা গেছে, টঙ্গীর তুরাগ তীরে ১৬০ একর বিস্তৃত বিশ্ব ইজতেমা ময়দান প্রায় কানায় কানায় পূর্ণ হয়ে গেছে। দেশী-বিদেশী মুসল্লিরা অবস্থান নিয়েছেন তাবুর নিচে। বয়ান শুনছেন, আল্লাহর ইবাদত-বন্দেগি করছেন। অন্যদিকে কেউ কেউ রান্নাবান্না, কাপড়-কাচা ও গোসলকরাসহ দৈনন্দিন কাজও সেরে নিচ্ছেন।

ময়দানে আশপাশে বসেছে হরেক রকমের দোকান। এর মধ্যে অনেকেই সেরে নিচ্ছে প্রয়োজনীয় কেনা-কাটা। এসব মিলিয়েই টঙ্গীর তুরাগ তীরে যেন মুসল্লিদের মিলনমেলায় পরিণত হয়েছে। বৃদ্ধ, যুবক, কিশোর ও তরুণসহ সকল বয়সের মুসল্লিরা পায়জামা-পাঞ্জাবী পড়ে ও টুপি মাথায়

ইসলামের এ মেলায় শরিক হয়েছেন। ইজতেমায় ময়দানে যতটুকু চোঁখ যায় শুধু মুসল্লি আর মুসল্লি। মাথার উপর চটের তাবু নিচে সবুজ ঘাস। এর মধ্যে বিছানাপত্র বিছিয়ে রাত্রীযাপনসহ ইবাদত-বন্দেগিতে মশগুল হয়ে পড়েছেন ধর্মপ্রাণ লাখ লাখ মুসল্লি।

ইজতেমা আয়োজক কমিটির সদস্য মো. ইলিয়াস জানান, ‘গতবছর ইজতেমা শুরু হওয়ার আগে এতো মুসল্লি হয়নি। এবার মুসল্লিদের সংখ্যা অনেক বেশী। আশা করছি, মুসল্লিদের আগমনে ময়দান কানায় কানায় পূর্ণ হয়ে যাবে। এ বছর বিশ্ব ইজতেমা নিয়ে সংশয় থাকলেও আল্লাহর শুকরিয়া, মুসল্লিদের উপস্থিতি এবার অনেক বেশী।’