সরকার ঘোষিত ২টি হজ প্যাকেজে যা আছে

সরকার ঘোষিত ২টি হজ প্যাকেজে যা আছে

এবছর পবিত্র হজ পালনের জন্য সরকার দুটি প্যাকেজ ঘোষণা করেছে। প্রথম প্যাকেজ অনুসারে খরচ পড়বে ৪ লাখ ১৮ হাজার ৫’শ টাকা

এবং দ্বিতীয় প্যাকেজ অনুসারে তা হবে তিন লাখ ৪৪ হাজার টাকা। সোমবার (১১ ফেব্রুয়ারি) সকালে প্রধানমন্ত্রীর কার্যালয়ে মন্ত্রিসভার বৈঠকে হজ প্যাকেজ ২০১৯-এর খসড়ায় অনুমোদন দেয়া হয়।

এছাড়া জাতীয় হজ ও ওমরাহ নীতি-২০১৯ এর খসড়ায়ও অনুমোদন দিয়েছে মন্ত্রিসভা। এবার প্রতিটি হজ এজেন্সি ১৫০ জন থেকে সর্বোচ্চ ৩০০ জনকে হজে পাঠাতে পারবে।

সৌদি সরকারের বেধে দেয়া কোটা অনুসারে চলতি বছর আসন্ন হজ মৌসুমে এক লাখ ২৭ হাজার ১৯৮ জন হজ পালনের সুযোগ পাবেন।

এরমধ্যে বেসরকারি ব্যবস্থাপনায় এক লাখ ২০ হাজার এবং বাকি সাত হাজার ১৯৮ জন সরকারি ব্যবস্থাপনায় হজ করবেন। সোমবার সকালে

প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার সভাপতিত্বে তার কার্যালয়ে মন্ত্রিসভার বৈঠকে জাতীয় হজ ও ওমরাহ নীতি ২০১৯ এবং হজ প্যাকেজ ২০১৯ এর খসড়ার অনুমোদন দেয়া হয়।

বৈঠকে বাংলাদেশ ও সৌদি আরবের মধ্যে সম্পাদিত হজ চুক্তি অনুসারে এবারের হজ প্যাকেজ নির্ধারণ করা হয়। বৈঠক শেষে সচিবালয়ে

মন্ত্রিপরিষদ সচিব মোহাম্মদ শফিউল আলম জানান, জাতীয় হজ ও ওমরাহ নীতি খসড়ায় বেশ কিছু পরিবর্তন আনা হয়েছে।

এ সময় মোহাম্মদ শফিউল আলম বলেন, ‘নিবন্ধিত হজযাত্রীর নামের তালিকা হতে তার সম্মতি ব্যতীত হজযাত্রী প্রতিস্থাপন করা যাবে না।

সৌদি আরবে বাড়ি ভাড়া-সার্ভিস চার্জ অনলাইনে পেমেন্ট করতে হবে।’

এ বছর হজের জন্য সরকারি ব্যবস্থাপনায় দু’টি প্যাকেজ ঘোষণার কথা জানিয়ে তিনি বলেন, প্রতি হজযাত্রীর জন্য প্রথম প্যাকেজ অনুসারে ৪

লাখ ১৮ হাজার ৫’শ টাকা এবং দ্বিতীয় প্যাকেজ অনুসারে তা পড়বে তিন লাখ ৪৪ হাজার টাকা। আর, বেসরকারি ব্যবস্থাপনায় খরচ কমপক্ষে তিন লাখ ৪৪ হাজার টাকার বেশি নির্ধারণের প্রস্তাব রাখা হয়েছে।

এবছর হজ করতে প্রতি জনকে বিমান ভাড়া বাবদ এক লাখ ২৮ হাজার টাকা নির্ধারণের কথাও জানান, মন্ত্রিপরিষদ সচিব।