দেশসেরা হওয়ার স্বপ্ন ক্ষুদে বিজ্ঞানী নোমানের

দেশসেরা হওয়ার স্বপ্ন ক্ষুদে বিজ্ঞানী নোমানের

বায়ু বিদ্যুৎ প্লান্ট তৈরি করে রীতিমতো হইচৈই ফেলে দিয়েছে ষষ্ঠ শ্রেণির ছাত্র আব্দুল্লাহ আল নবী নোমান। জাতীয় শিশু প্রতিযোগিতায় ৯ জেলার প্রতিযোগিদের

পেছনে ফেলে খুলনা বিভাগে চ্যাম্পিয়ন হয়েছে। এবার দেশসেরা হওয়ার পালা নোমানের। গোল্ড মেডেলের জন্য ঢাকায় যাওয়ার প্রস্তুতি নিচ্ছেন ক্ষুদে এই বিজ্ঞানী।

আব্দুল্লাহ আল নোমান মেহেরপুরের গাংনী উপজেলার তেরাইল-জোড়পুকুরিয়া ডিগ্রি কলেজের প্রভাষক জাবলুন্নবী ও জোড়পুকুরিয়া মাধ্যমিক বিদ্যালয়ের সহকারী

শিক্ষক নুসরাত সুলতানার পুত্র। সে লাইসিয়াম ইংলিশ ভার্সন স্কুলের ষষ্ঠ শ্রেণির ছাত্র।

বাংলাদেশ শিশু একাডেমি আয়োজিত ২০১৯ সালের জাতীয় শিশু কিশোর প্রতিযোগিতা শুরু হয় জানুয়ারি মাসের শুরুর দিকে। যন্ত্র ক্যাটাগরিতে বায়ু বিদ্যুৎ প্লান্ট

তৈরি করে গাংনী উপজেলা ও পরবর্তীতে মেহেরপুর জেলা চ্যাম্পিয়ন হয় আব্দুল্লাহ আল নোমান। পরবর্তীতে খুলনা বিভাগের ১০ জেলার চ্যাম্পিয়নদের নিয়ে বুধবার

খুলনা জেলা স্কুলে বিভাগীয় পর্যায়ের প্রতিযোগিতা অনুষ্ঠিত হয়। সেখানে সবাইকে টপকে ছোট্ট নোমান বিভাগীয় চ্যাম্পিয়ন হওয়ার গৌরব অর্জন করে। তার হাতে সনদপত্র, নগদ অর্থ ও উপহার তুলে দেন খুলনা জেলা প্রশাসক হেলাল হোসেন।

জানা গেছে, চট্রগ্রামের পতেঙ্গায় দেশের একমাত্র বায়ু বিদ্যুৎ প্লান্ট থেকে বিদ্যুৎ উৎপাদন হয়। নোমান ওই রকম একটি প্লান্ট তৈরি করেছে। ওই প্লান্টের মতই

বাতাসে পাখা বা টারবাইন ঘুরিয়ে বিদ্যুৎ উৎপাদন করে দেখিয়েছে এই শিশু। তবে এর বিশেষত্ব হচ্ছে- গ্রামাঞ্চলে এই প্লান্ট তৈরি করা সম্ভব। ক্ষুদে বিজ্ঞানীর এই

প্রযুক্তিগত চিন্তা ভাবনা বাস্তবায়িত হলে বিদ্যুৎখাতের একটি গুরুত্বপূর্ণ দিক হিসেবে বিবেচিত হতে পারে বলে ধারণা সংশ্লিষ্টদের।

এদিকে নোমানের এই কৃতিত্বে তাকে অভিনন্দন ও শুভেচ্ছা জানিয়েছে বিভিন্ন শ্রেণি পেশার মানুষ। দেশসেরা হতে সকলের দোআ কামনা করেছেন নোমানের গর্বিত পিতামাতা।