ক্রিকেট ইতিহাসের ‘সেরা’ ক্যাচের সাক্ষী হল মিরপুর

ক্রিকেট ইতিহাসের ‘সেরা’ ক্যাচের সাক্ষী হল মিরপুর

টি-২০ মানেই ক্যারিবিয়ানদের ধুন্ধুমার প্রদর্শনী। মিরপুরে ঢাকা ডায়নামাইটস এবং রংপুর রাইডার্সের ম্যাচের পরতে পরতে

দর্শকদের বিনোদিত করছেন ক্যারিবিয়ানরা। ঢাকা ডায়নামাইটসের ইনিংসে ঝড় তুলেন কাইরন পোলার্ড। মাত্র ২৬ বলে

করেছেন ৬২ রান। শেষ দিকে ১৩ বলে ২৩ রান তুলে নেন আন্দ্রে রাসেল।

আজ মিরপুরে যেনো নতুন রূপে সেজেছে বিপিএল। দর্শক খরা কেটেছে। কানায় কানায় পূর্ণ গ্যালারি মাতাতে বিন্দুমাত্র

কার্পণ্য করেননি পোলার্ড-রাসেল। ঢাকার দেয়া বড় টার্গেটে ব্যাট করতে নেমে শুরুতে ধাক্কা খায় রংপুর। বড় টার্গেটে সবার

নজর ছিল ক্রিস গেইলের দিকে। শুরুতে কিছুটা সময়ক্ষেপণ করছিলেন গেইল।

শুভাগত হোমের করা তৃতীয় ওভারের প্রথম বল ছক্কা মেরে শুরু করেন। দ্বিতীয় বলে এলবিডব্লিউ’র আবেদনে সাড়া

দেন আম্পায়ার। তবে রিভিউ নিয়ে বেঁচে যান। পরের বলেই সজোরে হাঁকান। বোলারের মাথার উপর দিয়ে নিশ্চিত ছয়

রানের জন্য সীমা প্রাচীর খুঁজছিল বল। কিন্তু আচমকা উড়ে আসলেন বিগ ম্যান আন্দ্রে রাসেল। ক্যাচ ধরলেন ঠিকই কিন্তু শরীরটা আঁচড়ে পড়লো সীমানার বাইরে। তবে তার আগে কাজের কাজটা করে গেলেন। হাওয়ায় ভাসা অবস্থায় বলটা দিয়ে

গেলেন লং অন থেকে সাহায্যের জন্য এগিয়ে আসা কাইরন পোলার্ডকে। সহজ ক্যাচটি তুলে নিয়ে উদযাপন শুরু করেন

পোলার্ড। এ দুই ক্যারিবিয়ানের অসাধারণ বোঝাপড়ায় থেমে যায় আরেক ক্যারিবিয়ান ঝড় ক্রিস গেইল। আর মিরপুর সাক্ষী হয় ক্রিকেটের সেরা ক্যাচগুলোর একটির।

ব্যর্থ হন মেহেদী মারুফও। মাত্র ১০ রানে তাকে ফেরান আন্দ্রে রাসেল। তবে রাইলি রুশোর ব্যাটে বেশ ভালোভাবেই লড়াইয়ে আছে রংপুর।

স্কোর:
রংপুর রাইডার্স: ৬২/২ (৭.১) রুশো ৩৭*, মিঠুন ১০*।

ক্যারিবিয়ান ঝড়ে ঢাকার রানের পাহাড়

রংপুর রাইডার্সের সামনে বড় সংগ্রহ দাঁড় করিয়েছে ঢাকা ডায়নামাইটস। কাইরন পোলার্ড, সাকিব আল হাসান এবং আন্দ্রে

রাসেলের ঝড়ে ৯ উইকেটে ১৮৩ রান করেছে ঢাকা।

মিরপুরে টস জিতে আগে ফিল্ডিং করার সিদ্ধান্ত নেন রংপুর দলপতি মাশরাফি বিন মুর্তজা। সোহাগ গাজী এবং অধিনায়ক

মাশরাফি বিন মুর্তজার বোলিংয়ে শুরুতে চাপে পড়েছে ডায়নামাইটসরা। ম্যাচের দ্বিতীয় ওভারে ফর্মের তুঙ্গে থাকা

হজরতুল্লাহ জাজাইকে বোল্ড করেন সোহাগ গাজী। দলীয় ১৯ রানে আরেক ওপেনার সুনীল নারিনকে ফেরান মাশরাফি।

রোবি বোপারার হাতে ক্যাচ দেয়ার আগে তিনি করেন ৮ রান। পরের ওভারেই রনি তালুকদারকে ফেরান সোহাগ গাজী।

এরপর দলের হাল ধরেন অধিনায়ক সাকিব আল হাসান। হিসেবে ব্যাটিংয়ে উইকেট ধরে রাখেন তিনি। তবে অপরপ্রান্ত

থেকে কাইরন পোলার্ড ঝড় তুলে রানের চাকা সচল রাখেন। মাত্র ২১ বলে অর্ধশতক তুলে নেয়া পোলার্ড থামেম ৬২

রানে। তাকে ফেরান বিনি হাওয়েল। এরপর সাকিবও ফিরে যান ৩৬ রানে। তবে শেষ দিকে ১৩ বলে ২৩ রান করে

দলকে লড়াইয়ের পুঁজি এনে দেন আন্দ্রে রাসেল। তবে শেষ দিকে রান তুলতে ব্যর্থ হয়েছেন শুভাগত হোম, নুরুল হাসান সোহানরা।

স্কোর:
ঢাকা ডায়নামাইটস: ১৮৩/৯
হজরতুল্লাহ জাজাই ১ (৩)
সুনীল নারিন ৮ (৯)
রনি তালুকদার ১৮ (৮)

সাকিব আল হাসান ৩৬ (৩৭)
মিজানুর রহমান ১৫ (১২)
কাইরন পোলার্ড ৬২ (২৬)

আন্দ্রে রাসেল ২৩ (১৩)
শুভাগত হোম ৩ (৮)
নুরুল হাসান ৪ (৩)
রুবেল হোসেন ১* (১)

বোলার:
মাশরাফি বিন মুর্তজা (৪-০-২২-১)
সোহাগ গাজী (৩-০-২৮-২)
শফিউল ইসলাম (৪-০-৩৫-৩)

বিনি হাওয়েল (৪-০-২৫-২)
ফরহাদ রেজা (৩-০-৩২-১)
নাজমুল ইসলাম অপু (২-০-৩৪-০)