আইফোনে শুভেচ্ছা জানানোয় হুয়াওয়ের ২ কর্মকর্তার শাস্তি

আইফোনে শুভেচ্ছা জানানোয় হুয়াওয়ের ২ কর্মকর্তার শাস্তি

নিজেদের ব্র্যান্ডের স্মার্টফোন ফেলে আইফোন দিয়ে টুইটারে নতুন বছরের শুভেচ্ছা জানিয়েছে চীনভিত্তিক প্রযুক্তি প্রতিষ্ঠান হুয়াওয়ে। আর এ ঘটনায় শাস্তি পেতে হয়েছে প্রতিষ্ঠানটির দুই কর্মকর্তাকে।

কয়েকদিনের ব্যবধানেই ওই দুই কর্মকর্তাকে পদাবনতি ধরিয়ে দিলো কর্তৃপক্ষ।

আন্তর্জাতিক সংবাদমাধ্যম বলছে, গ্রাহকদের উদ্দেশে নতুন বছরের শুভেচ্ছা জানাতে থার্টি ফার্স্ট রাতে নিজেদের টুইটার পেজে টুইট করে

হুয়াওয়ে। ‘Happy #2019’ লেখা এই টুইটের নিচে তথ্য ভেসে উঠে- ‘Twitter for iphone’। অর্থাৎ টুইট করতে হুয়াওয়ে ব্যবহার করেছে

মার্কিন প্রযুক্তি জায়ান্ট অ্যাপলের আইফোনের একটি ফোন।

পরে বিষয়টি ঊর্ধ্বতন কর্তৃপক্ষের নজরে আসলে শিগগির টুইটটি মুছে ফেলা হয়। সেইসঙ্গে এ ঘটনার জন্য দুই কর্মকর্তাকে পদাবনতি দেওয়া হয়।

বৃহস্পতিবার (০৩ জানুয়ারি) পদাবনতি নোটিসে হুয়াওয়ের সিনিয়র ভাইস প্রেসিডেন্ট চেন লিফাং বলেন, এ ঘটনা হুয়াওয়ের ব্র্যান্ড ইমেজকে নষ্ট করেছে।

গুগল ও ফেসবুকের মতো চীনে নিষিদ্ধ মাইক্রো ব্লগিং সাইট টুইটার। তবে ভিপিএস সফটওয়্যার দিয়ে ব্যবহার করা যায় এসব প্ল্যাটফর্ম।

হুয়াওয়ের আভ্যন্তরীণ এক প্রতিবেদনে বলা হয়, টুইট করার জন্য যে ডেস্কটপটি ব্যবহার করা হচ্ছিল, সেটিতে ভিপিএনজনিত সমস্যা। তাই

তখন ঠিক মধ্যরাতে শুভেচ্ছা বার্তা পোস্ট করার জন্য আন্তর্জাতিক রোমিং সিম থাকা একটি আইফোন ব্যবহার করা হয়।

শাস্তি হিসেবে ওই দুই কর্মকর্তাকে এক র‍্যাংক পদাবনতি এবং মাসিক বেতন ৭২৮ মার্কিন ডলার কমিয়ে দেওয়া হয়। এছাড়াও প্রতিষ্ঠানটির

ডিজিটাল মার্কেটিং বিভাগের পরিচালকের পদোন্নতি আগামী এক বছর স্থগিত করে দেওয়া হয়।

এদিকে, পোস্টটি মুছে ফেলা হয়ে গেলেও ভার্চুয়াল জগতে তা দ্রুত ভাইরাল হয়ে গেছে। এতে হুয়াওয়ের হ্যান্ডসেট ব্যবহার করেন এমন

গ্রাহকদের কড়া সমালোচনার মুখে পরে প্রতিষ্ঠানটি। চীনে বহুল ব্যবহৃত সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম উইবো’তে এক ব্যবহারকারী লেখেন,

বেইমান নিজেকে প্রকাশ করলো। মন্তব্যটিতে শিগগির ৬০০ লাইক পড়ে।