এখনও আসছেন প্রবাসীরা, বিমানবন্দরে শরীরে মারা হচ্ছে সিল

এখনও আসছেন প্রবাসীরা, বিমানবন্দরে শরীরে মারা হচ্ছে সিল

যুক্তরাজ্য, চীন, থাইল্যান্ড ও হংকংয়ের সাথে এখনও বিমান যোগাযোগ থাকায় প্রতিদিনই আসছেন প্রবাসীরা। এদের একটি বড় অংশই যুক্তরাজ্যের। তাদের সবার হাতে সিল লাগিয়ে বলা হচ্ছে, কোয়ারেন্টিনে থাকতে।

যুক্তরাজ্যে করোনা ভাইরাসে আক্রান্ত হয়েছেন ৫ হাজারের বেশি মানুষ। আর মারা গেছেন ২শ’ জনের বেশি।

চীনে এই ভাইরাসে আক্রান্ত হয়েছেন ৮১ হাজারের বেশি, মারা গেছেন ৩ হাজারের বেশি।

থাইল্যান্ডে এই ভাইরাসে আক্রান্ত হয়েছেন ৫৯৯ জন আর মারা গেছেন ১ জন। আর হংকংয়ে আক্রান্ত হয়েছেন ২৭৪ জন আর মারা গেছেন ৪ জন।

অন্যান্য দেশ থেকে ঢাকার হযরত শাহজালাল আন্তর্জাতিক বিমানবন্দরে বিমান অবতরণ না করতে পারলেও এই চারটি দেশ থেকে শতাধিক যাত্রী নিয়ে বিমান বাংলাদেশ, থাই এয়ারওয়েজ, চায়না সাউদার্ন, চায়না ইস্টার্ন বিমান এখনও যাত্রী নিয়ে অবতরণ করছে।

ফলে এই বিমানবন্দরটি বলা যায় যাত্রী শূণ্য। তবে করোনা ভাইরাসে আক্রান্ত চারটি দেশ থেকে এখনও দেশে আসছে যাত্রীরা। যেমন বাংলাদেশীরা তেমনি আছেন অন্যান্য দেশের নাগরিকরাও।

বিমানবন্দরে আগত যাত্রীরা বলছেন, তাদের হাতে একটি সিল দিয়ে বলা হচ্ছে হোম কোয়ারেন্টাইনে থাকার জন্য।

বিমানবন্দর পরিচালক তৌহিদ-উল-আহসান বলছেন, ২২ তারিখ রাত ১২ টা থেকে ১০টি দেশের সাথে বিমান চলাচল বন্ধ করা হয়েছে। তবে যুক্তরাজ্য, চীন, থাইল্যান্ড এবং হংকয়ের সাথে বিমান চলাচল বন্ধ করার বিষয়ে নীতি নির্ধারণী বিষয়ে আলোচনা চলছে বলেও জানিয়েছেন তিনি।

এছাড়া অভ্যন্তরীণ রুটেও বিমান চলাচল কমে গেছে বলেও জানিয়েছেন বিমানবন্দর পরিচালক তৌহিদ-উল-আহসান।

নিউজ সোর্স: CHANNEL24