ওষুধ সেবনে পুরুষের স্তন বৃদ্ধি, জরিমানা ৭০ হাজার কোটি টাকা!

চিত্র বিচিত্র ডেস্কঃ মার্কিন ওষুধ প্রস্তুতকারণ প্রতিষ্ঠান জনসন অ্যান্ড জনসনের তৈরি একটি ওষুধ সেবনের ফলে পুরুষের স্তন বৃদ্ধি পাওয়ার অভিযোগে কোম্পানিটিকে বাংলাদেশি মুদ্রায় প্রায় ৭০ হাজার কোটি টাকা (৮০০ কোটি ডলার) জরিমানা করা হয়েছে।

যুক্তরাষ্ট্রের ফিলাডেলফিয়ার আদালত শুক্রবার (১৭ জানুয়ারি) কোম্পানিটিকে এ জরিমানার আদেশ দিয়েছেন বলে আন্তর্জাতিক সংবাদমাধ্যম এএফপি খবর প্রকাশ করেছে। ওষুধ সেবনের পর পুরুষের স্তন বৃদ্ধির ব্যাপারে গ্রাহকদের সতর্ক করতে ব্যর্থ হওয়ায় তাদের জরিমানা করা হয়েছে।

আদালত বলেছেন, এই মুহূর্তে ক্ষতিপূরণ হিসেবে ভূক্তভোগীকে ৬ দশমিক ৮ মিলিয়ন ডলার পরিশোধ করবে জনসন অ্যান্ড জনসন। তবে মার্কিন এই ফার্মাসিউটিক্যালস কোম্পানি আদালতের সিদ্ধান্তের বিরুদ্ধে আপিল করবে বলে জানিয়েছে।

এর আগে, গত অক্টোবরে আদালতকের বিচারকরা জনসন অ্যান্ড জনসন এবং এর সহযোগী প্রতিষ্ঠান জনসিন ফার্মাসিউটিক্যালসকে ভূক্তভোগী ও মামলার বাদি নিকোলাস মুরেকে ক্ষতিপূরণ দেয়ার নির্দেশ দেন। ওই সময় তিনি আদালতকে বলেন, সিজোফ্রেনিয়া এবং বাইপোলার ডিসঅর্ডারের চিকিৎসায় জনসিন ফার্মাসিউটিক্যালসের রিসপারডাল ওষুধটি সেবনের পর তার স্তন বড় হতে থাকে।

আদালত ক্ষতিপূরণের পরিমাণ কমালেও জনসন অ্যান্ড জনসন বলেছে, আমরা এই রায়ের বিরুদ্ধে আপিল করার সিদ্ধান্ত নিয়েছি। তবে এই ওষুধের উপকার এবং ক্ষতিকর দিকগুলোর ব্যাপারে ওষুধটির গায়ে সতর্ক বার্তা দেয়া হয়েছে কিনা তা আদালতের বিচারকদের কাছে গুরুত্বপূর্ণ প্রমাণ হিসেবে হাজির করতে পারেননি জনসিন ফার্মাসিউটিক্যালস।

ফিলাডেলফিয়া ছাড়াও এই ওষুধটির পার্শ্বপ্রতিক্রিয়ার ব্যাপারে ভোক্তাদের জানাতে ব্যর্থ হওয়ার দায়ে পেনসিলভানিয়া, ক্যালিফোর্নিয়া ও মিসৌরিতেও জনসন অ্যান্ড জনসনের বিরুদ্ধে মামলা বিচারাধীন রয়েছে।

১৯৯৩ সালে প্রথমবারের মতো সিজোফ্রেনিয়া এবং বাইপোলার ডিসঅর্ডারে আক্রান্ত প্রাপ্ত বয়স্কদের চিকিৎসায় জনসিন ফার্মাসিউটিক্যালসের রিসপারডাল ওষুধটির অনুমোদন দেয়। ২০১৮ সালেই এই ওষুধটি প্রায় ৭৩৭ মিলিয়ন ডলার বিক্রি হয়েছে।

মার্কিন এই কোম্পানির বিভিন্ন পণ্যের বিরুদ্ধে ভোক্তাদের অভিযোগ নতুন নয়। গত বছরের অক্টোবরে জনসনের বেবি ট্যালকম পাউডারে ক্যানসারের উপাদান অ্যাসবেস্টস থাকায় বাজার থেকে সেসব পণ্য তুলে নেয়া হয়।

সূত্র: এএফপি।

Leave a Reply

Your email address will not be published.